মোবাইলে ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করবেন যেভাবে

হ্যালো বন্ধুরা আজ আমরা কথা বলবো একটি মাইক্রো ফ্রিল্যান্সিং সাইট নিয়ে যেখান থেকে আপনি খুব ছোট ছোট কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করতে পারেন। আমরা সবাই জানি ফ্রিল্যান্সিং কি! সব থেকে মেইন কথা হচ্ছে আপনাকে কাজ জানতে হবে, তা না হলে আপনি কোথাও কাজ পাবেন না। সেটা মাইক্রো ফ্রিল্যান্সিং সাইট হোক কিংবা ব্রড ফ্রিল্যান্সিং সাইট।

ফ্রীতে কোথাও কিছু নাই। আপনাকে কোন একটা স্কিল অর্জন করতে হবে তারপর আপনাকে মারকেটপ্লেসে আসতে হবে । এই সব মার্কেটপ্লেসে অনেকে তাদের ব্যাক্তিগত কাজ সময় বাচানোর জন্য অথবা অন্য যে কোন কারনে ওন্যকে দিয়ে টাকার বিনিময়ে করিয়ে থাকেন। সেটা যে কোন ধরনের কাজ বা সেবা হতে পারে। মূলত ফ্রিল্যান্সিং অনেকটা এরকমই ।

তো আজ আমরা যে সাইট টা নিয়ে আলোচনা করবো সেখানে কাজ করতে খুব বেশি স্কিল বা একপিরিয়ান্সের দরকার হয় না। আপনি যদি ইন্টারনেট ব্যাবহার করতে জানেন । ফেসবুক সহ নানা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যাবহার করেন। আপনি নিজে একাউন্ট খুলতে পারেন । এছাড়া ওয়েব ব্রাউজিং সহ মোটামুটি ইন্টারনেট সম্পর্কে ধারনা থাকলে আপনি এই মাইক্রো সাইট গুলাতে কাজ করতে পারবেন।

এই সমস্ত সাইটে আপনাকে যে সব কাজ দেওয়া হতে পারে বা আপনি যে সমস্ত কাজ করে ইনকাম করতে পারেন সেগুলা হল –

ইউটিউব ভিডিও দেখা

  • ওয়েব সাইট ভিজিট করা
  • ফেসবুক লাইক করা
  • সাইন আপ করা
  • বিভিন্ন এপস ডাউনলোড করা
  • বিভিন্ন সাইটে তাদের নির্দেশনা মতো কাজ করা

নিচে কিছু কাজের স্যাম্পল দেওয়া হল, কি ধরণের কাজ পেতে পারেন। নিচের ফটো গুলা দেখলেই বুঝতে পারবেন।

এখানে আপনাকে একটা ওয়েব পেজ ভিজিট করলে 0.03$ দেওয়া হবে।
এখানে আপনাকে একটা সারভে করতে হবে। মানে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। তার বিনিময়ে আপনাকে 0.31$ দেওয়া হবে।
এখানে আপনাকে একটা সাইটে সাইন আপ করতে হবে। তার জন্য আপনি পাবেন। 0.14$

এভাবে প্রতিটা কাজের আলাদা আলাদা এমাউন্ট থাকবে। এবং সব সময় যে এই ধরণের কাজ থাকবে এমন কিন্তু কোন কথা নাই। বিভিন্ন ধরণের কাজ আসতে পারে। আপনাকে জাস্ট সেটা পড়ে বুঝতে হবে যে – আপনাকে কি করতে বলা হয়েছে।

মূলত প্রতিটা কাজের একটা ডিটেইলস কাজের সাথে দেওয়া থাকবে আপনাকে জাস্ট সেটা পড়ে বুঝে কাজটা করতে হবে এটাই। অতটুকু ইংরেজি আশা করি সবাই জানে যে কিনা ইন্টারনেট ইউজ করতে জানে। আপনাকে কারো সাথে ইংরেজিতে কথা বলতে হবে না বা ইংরেজি লিখতে হবে না জাস্ট তারা যেটা লিখেছে সেটা পড়তে পারলে এবং আপনার কাজটা বুঝতে পারলে কিন্তু আপনি কাজ শুরু করতে পারেন।

প্রতিটা কাজের জন্য একটি নির্দিষ্ট এমাউন্ট থাকে আপনি কাজ করলেন সেটা যার কাজ ছিলো সে সেটা রিভিউ করবে এবং আপনাকে নির্দিষ্ট এমাউন্ট দিয়ে দিবে আপনার একাউন্টে সেটা যোগ হয়ে যাবে।

কাজ করার আগে আপনি সেটা দেখে নিতে পারবেন যে সেটার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে?

এর পর পুরা কাজের ডিটেইলস পড়ে আপনার যদি মনে হয় আপনি কাজটি পারবেন, তাহলে করবেন না হলে করবেন না। ব্যাস এটাই।

এর পর আমাদের সবার সবথেকে বহুল পরিচিত প্রশ্ন, ভাই পেমেন্ট কিভাবে পাবো। আমাদের সবারি এই একই সমস্যা আমরা কাজএর থেকে আগে পেমেন্ট কে বেশি প্রাধান্য দেই। হ্যা পেপেন্ট মেথড ও ইম্পরট্যান্ট বাট নট মোর দ্যান কাজ কাম ওকে?

আমরা যে সাইটের ক্তহা বলছি এখানে আপনি পেমেন্ট নিতে পারবেন। অনলাইন ক্রিপ্টকারেন্সির মাধ্যমে, পেপাল, বিটকয়েন, পারফেক্টমানি ইত্যাদির মাধ্যমে। আশা করি পেমেন্ট নিয়া ক্লিয়ার হয়েছেন ।

ও আর কিছু কথা । এখানে আপনার কাজ যদি ঠিক মতো না হয় তাহলে  আপনি জার কাজ করছেন। সে কিন্তু রিজেক্ট করতে পারে। তাই ঠিক মতো কাজ না করলে রিজেক্ট ও হতে পারেন। এট একদম ই বড়ো ফ্রিল্যান্সিং সাইটের মতো কাজ করে । জাস্ট এখানে কাজ গুলা একটু ছোট ছোট আর ব্যাসিক কাজ পাওয়া যায়।

আমার মনে আছে ২০১৭, ১৮ এর দিকে আমি এই সাইটে কাজ করে পেমেন্ট নিয়েছিলাম আমার হাতের স্মারটফোন দিয়ে। তখনো আমার কোন পিসি ছিলো না। তাই আপনি চাইলে আপনার হাতের স্মারট ফোন দিয়ে ও এই সাইট কাজ করতে পারেন। জাস্ট একটু বুঝলে হবে। আর আপনি এই সাইটের কাজ গুলা ইউটিবে খুব সুন্দর করে পেয়ে যাবেন কিভাব করে। সেগুলা দেখলে আপনার আরো সুবিধা  হবে।

আজকে এতটুকুই আশা করি আপনাদের ভালো লেগেছে। এর ২য় পারটে আরো কিছু লেখার ট্রাই করবো। ধন্যবাদ ❤

5/5 - (1 vote)

Leave a Comment