রাষ্ট্র কি, রাষ্ট্র কাকে বলে?

হ্যালো বন্ধুরা কি অবস্থা সবার? আশা করি সবাই ঠিকঠাক। আমাদের আজকের টপিক হলো রাষ্ট্র কাকে বলে? আজ আমরা রাষ্ট্র সম্পর্কে নানা বিষয় জানবো? এবং রাষ্ট্র আসলে কি সেটা খুব ভালভাবে বোঝার চেষ্টা করব। তো বেশি না বকে তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক –

রাষ্ট্র কি? বা কাকে বলে?

রাষ্ট্র হল এমন এক জনসমাজ যা একটি নির্দিষ্ট ভূখণ্ডে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বা রাজনৈতিক কাজকর্মের জন্য স্থায়ীভাবে প্রতিষ্ঠিত এবং বাহিরের দেশের নিয়ন্ত্রণ থেকে মুক্ত।

বিভিন্ন বিজ্ঞানীরা রাষ্ট্র সম্পর্কে বিভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তো চলেন বিজ্ঞানিরা রাষ্ট্র সম্পর্কে কি বলেছেন দেখে নি–

রাষ্ট্রবিজ্ঞানী বার্জেস এর মতে, ‘‘একটি নির্দিষ্ট ভূখণ্ডে বা দেশে রাজনৈতিক দিক থেকে সংগঠিত জনসমষ্টিই হল রাষ্ট্র।’’

অধ্যাপক গার্নারের মতে, ‘‘রাষ্ট্র হল সাধারণভাবে বিশালএক জনসমাজ যা একটি নির্দিষ্ট ভূখণ্ডে স্থায়ীভাবে বসবাস করে, যা বাহিরের সব শক্তি থেকে মুক্ত। এবং যার একটি জনগণের দ্বারা নির্বাচিত সরকার রয়েছে এবং এই সরকারের প্রতি অধিকাংশ জনগণ স্বাভাবিক ভালোবাসা প্রদর্শন করে থাকে।

ওপেনহাইমে এর মতে, ‘‘যখন কোনাে নির্দিষ্ট একটি ভূখণ্ডে বা দেশে কোনাে একক বা সংগঠিত জনসমষ্টি সার্বভৌম সরকার প্রতিষ্ঠা করে, তখন একটা রাষ্ট্রের সৃষ্টি হয়।’’

মার্কিন রাষ্ট্রপতি উইলসনের মতে, ‘‘কোনাে নির্দিষ্ট ভূখণ্ডে যখন আইন প্রতিষ্ঠার জন্য একটা জনসমষ্টির সৃষ্টি করা হয়। তখন সেই সংগঠিত জনসমষ্টি হল রাষ্ট্র।’’

রাষ্ট্রের বিভিন্ন উপাদান:-
রাষ্ট্রের বিভিন্ন ধরনের উপাদান রয়েছে। তারমধ্যে রাষ্ট্র চারটি প্রধান উপাদান নিয়ে গঠিত। যথা:-

  1. জনসংখ্যা
  2. ভূখন্ড বা অঞ্চল
  3. সরকার এবং
  4. সার্বভৌমত্ব।

১. জনসংখ্যা

জনসংখ্যা ছাড়া কোন রাষ্ট্র হতেই পারে না। রাষ্ট্র হল মানুষের একটি রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। রাষ্ট্রের সবচেয়ে প্রধান অন্যতম অপরিহার্য উপাদান হচ্ছে জনসংখ্যা। জনসংখ্যা ছাড়া একটি রাষ্ট্র হতে পারে না। জনসংখ্যা ছাড়া কোন রাষ্ট্র কল্পনা করা যায় না। একটি রাষ্ট্রের জনসংখ্যা কম-বেশি হতেই পারে।

যেমন ধরেন কিছু দেশ আছে যে দেশগুলো খুব ছোট। সেখানে জনসংখ্যা ও খুব কম ।তারমধ্যে কানাডা, সুইজারল্যান্ড, মালদ্বীপ, সিঙ্গাপুর খুব ছোট জনসংখ্যার রাষ্ট্র। অন্যদিকে কিছু দেশ রয়েছে যেখানে জনসংখ্যা অনেক বেশি তার মধ্যে রয়েছে রয়েছে চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়ার যেখানে অনেক বেশি জনসংখ্যা রয়েছে।

রাষ্ট্রে বসবাসকারী লোকদের সেই রাষ্ট্রের নাগরিক বলে। নাগরিকদের যেমন রাষ্ট্রের অধিকার ও স্বাধীনতা ভোগ করার অধিকার রয়েছে তেমনি পাশাপাশি বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করা ও তাঁদের দায়িত্ব। অন্য দেশের নাগরিকরা যদি বাংলাদেশ এ বসবাস করে তখন তাদের বলা হয় বিদেশি। রাষ্ট্রের মধ্যে বসবাসকারী সকল ব্যক্তি, নাগরিকদের বিদেশিদের আইন ও নীতি মেনে চলতে হয়। রাষ্ট্র তার সরকারের মাধ্যমে তাদের উপর সর্বোচ্চ কর্তৃত্ব প্রয়োগ করে।

২. অঞ্চল

অঞ্চল একটি রাষ্ট্রের দ্বিতীয় অপরিহার্য উপাদান। কয়েকটা অঞ্চল নিয়ে একটা রাষ্ট্রহয়। রাষ্ট্র একটি অঞ্চল ভিত্তিক ইউনিট। আর নির্দিষ্ট অঞ্চল হল এর অপরিহার্য উপাদান। একটি রাষ্ট্র কী কখনো আকাশে বা সমুদ্রে থাকতে পারে না। পারেনা ।কারণ এর কিছু অংশ রয়েছে তার মধ্যে এর আসল অংশ হলো অঞ্চল নিয়ে গঠিত হয়।

এটি আসলে একটি আঞ্চলিক রাষ্ট্র। একটি রাষ্ট্রের বা দেশের আকার ছোট বা বড় হতে পারে। কিছু অঞ্চল আছে ছোট আবার কিছু অঞ্চল আছে অনেক বড়। সমগ্র ভূখণ্ড রাষ্ট্রের বা সর্বোচ্চ ক্ষমতার অধীনে রয়েছে।

সমুদ্র বা কিছু দ্বীপও রাষ্ট্র বা অঞ্চলের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে। তার মধ্যে, আন্দামান দ্বীপ ও নিকোবর দ্বীপ হলো ভারতের অংশ। সেন্টমার্টিন দ্বীপ হলো বাংলাদেশের অংশ। রাষ্ট্র তার ভূখণ্ড বা দেশের ওপর সমস্ত অংশের উপর সার্বভৌমত্ব প্রয়োগ করে।

৩.সরকার:-

রাষ্ট্রের মধ্যে সরকার একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। জনসংখ্যা অঞ্চল যেমন রাষ্ট্রের একটি উপাদান তেমনি সরকার ও রাষ্ট্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান।সরকার হল রাষ্ট্রের অন্যতম উপাদান বা সংস্থা । যার দ্বারা রাষ্ট্রের আইন প্রণয়ন, প্রয়োগ, এবং বিচার কার্যক্রম করে থাকে। সরকার রাষ্ট্রের তৃতীয় অপরিহার্য উপাদান। রাষ্ট্র সরকারের মাধ্যমে তার সারা বিশ্বের ক্ষমতা একা প্রয়োগ করতে পারি।।

অনেকেরি ধারণা যে সরকার এবং রাষ্ট্রের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। সে যাইহোক, এটা সঠিকভাবে বা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা উচিত যে সরকার রাষ্ট্রেরি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান মাত্র। এটি রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসেবে যথেষ্ট ভূমিকা পালন করে।

৪.সার্বভৌমত্ব

জনসংখ্যা, অঞ্চল ও সরকারের পরেই আসে সার্বভৌমত্ব। সার্বভৌমত্ব হলো রাষ্ট্রের চতুর্থ উপাদান এবং সর্বশেষ উপাদান। সার্বভৌমত্ব একটি রাষ্ট্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। কারণ রাষ্ট্রই সার্বভৌমত্বের অধিকারী। সার্বভৌমত্ব ছাড়া কোনো রাষ্ট্র কল্পনা কার যায় না। আসলে সার্বভৌমত্ব হল সেই ভিত্তি যার ভিত্তিতে রাষ্ট্র তার

দেশ বসবাসকারী সব মানুষের জীবনের সব দিক নিয়ন্ত্রণ করেন ও সুরক্ষা প্রদান করেন।

তো বন্ধুরা এই ছিলো রাষ্ট্র নিয়ে আমাদের খুটিনাটি লেখা ।আশা করি আপনাদের ভাল্লাগবে। ধন্যবাদ

Rate this post

Leave a Comment